প্রিয় আলোর দ্যুতি

0
76

প্রিয়,
আলোর দ্যুতি

তোমাকে যে এভাবে লিখতে হবে কখনো ভাবিনি। চিঠি লিখতে আমার খুব ভালো লাগে।আর মন খারাপ হলেই তোমার কাছে চিঠি লিখি আমি। কারন তোমার চিঠি লেখা খুব পছন্দের ছিল। আমি তোমার কোন চিঠির উত্তর দিতাম না। এখন বুঝি মনের আবেগ নিয়ে কিছু লিখলে তার প্রতি উত্তর দিতে না পারলে কতো কষ্ট লাগে। তুমি আমার জীবনে আলোর দ্রুতি ছিলে তাই আমি তোমাকে আলোক দ্রুতি হিসেবে সম্মোধন করলাম। তুমি আমার খুব ভালো বন্ধু ছিলে। আমি ছিলাম তোমার ভালোবাসা। কিন্তু বন্ধুত্বের মধ্যে তুমি কখনো তোমার ভালোবাসা কে আনতে দাওনি। তোমার বন্ধুত্ব ছিল নিঃস্বার্থ। ভালোবাসা ছিল নিঃস্বার্থ। তোমার সাথে মজা করতাম। তোমাকে বকতাম কখনো তুমি আমার উপর মন খারাপ করোনি। আমি তাই বন্ধু মানে তোমাকে বুঝতাম তোমার সাথে যেভাবে দিন কাটাতাম বন্ধু মানে তাই বুঝতাম। বন্ধু মানে অন্যের করা রাগ তোমার উপর দিয়ে যাওয়া। বন্ধু মানে মন খারাপ হলে চুপ করে থাকা যেন তুমি সবটা বুঝে নেও। বন্ধু মানে তো লাগলে তোমাকে আপনি করে বলা। তোমাকে বন্ধু ভেবেছিলাম দেখেই আজোও সব কিছু তোমার সাথে শেয়ার করি। তুমি তো অন্ধকারে হারিয়ে গেছো। এখন তো খুঁজলেও তোমাকে পাবো না। তোমার মতো বন্ধু খুঁজে পাওয়া যাবে না। এখন বন্ধু গুলো যেন কেমন। নিজের ভিতরে একটা আমি আমি ভাব থাকে। বিশাল আকাশ ছুঁতে পারে না। বন্ধুত্বের মধ্যে খুঁজে ফেরে মাটির নিচে লুকিয়ে থাকা কাল কেউটে। তোমার মতো তো মন বুঝে না। দেখে শুধু উপরটা। বন্ধু তুমি আকাশের মেঘের ভেসে বেড়াও। আমার আগে আকাশের দিকে তাকিয়ে রাত দিন কেটে যেতো তাই ভালো ছিল। কিছু দিনের জন্য আমি দুনিয়ার হারিয়ে গিয়েছিলাম আমার ভাবনার রাজ্য থেকে। খুব মরিচীকা জানো সব সম্পর্ক গুলো খুব স্বার্থপর। আমার না ঠিক আগের মতো মেঘের ভেলায় ভাসতে ইচ্ছে করে। অন্ধকারে হারাতে ইচ্ছে হয়। কিন্তু এমনি এমনি ইচ্ছে করলে তুমি পর্যন্ত যেতে পারবো না। আমি একাই ভালো ছিলাম। সচ্ছ আয়নায় নিজেকে দেখতে পেতাম। ভরা পূর্ণিমায় জানালার পাশে বসে স্নান করতাম চাঁদের আলোয়। তুমি কি কখনো আমাকে খোলশ পাল্টাতে দেখেছ। আমি তো তোমাকে কখনো বলেনি ভালোবাসি। তুমি তো জানো আমি কাউকে ভালোবাসতে জানিনা। তবে কেন এমন হয়। আমি কেন এক মানুষ হয়ে ভিন্ন রূপী। তুমিও তো আমায় বন্ধু বলে ডাকতে। তোমার কাছে তো আমি ছিলাম। তোমার মন খারাপ হলে একটা পরম নির্ভরতার আশ্রয় স্থল। হতাশায় পথ হারিয়ে ফেললে তার ঠিকানা।আলোর রশ্মি। তবে আরেক চোখে আমি আঁধার। তুমি থাকতে আমি বুঝিনি তুমি কতোটা আপন ছিলে। আজ হারিয়ে গেছো তাই খুঁজে ফিরি। অনেক সময় তোমার উপস্থিতি বিরক্ত লাগতো। আজ তোমাকে চাইলেও পাই না। এটাই তো প্রকৃতির নিষ্ঠুর নিয়ম। হয়তো এই নিয়মের মাঝে আমি একদিন বাঁধা পড়ে যাবো তখন সত্যি বলছি আমায় আর কেউ মনে রাখবে না। আমি কারো ভালো বন্ধু হতে পারি নি। হয়তো পরিবার ঘটা করে কিছু বছর শোকের মাতম গাইবে। তারপর সব নিরবতায় ছেয়ে যাবে। ভেবো না আমি যতোদিন বেঁচে আছি আমার কবিতায়, চিঠিতে তুমি সজীব হয়ে থাকবে। তুমি জানলে না আমি কতোটুকু মনে করি তোমায়। আমি ও হয়তো জানতে পারবো না আমার জন্য কেউ মন খারাপের ভেলা ভাসাবে কিনা।

ইতি
তোমার একটুকরো
কালো মেঘ

নাজমুন নাহার সন্ধ্যা
হৃদয়ে বাংলা ডট কম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here